হোম পৃষ্ঠা / চাটখিল / নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার পটভুমি

নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার পটভুমি

নোয়াখালী জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা।আয়তনের দিক থেকে নোয়াখালী জেলার ক্ষুদ্রতম উপজেলা হিসেবে ০১ আগষ্ট ১৯৮৩ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। চাটখিল উপজেলা ০১ টি পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়নের সমন্বয়ে গঠিত। ইউনিয়ন গুলো হচ্ছে: বদলকোর্ট, খিলপাড়া, নোয়াখলা, পরকোট, সাহাপুর, হা্টপুকুরিয়া-ঘাটলাবাগ, মোহাম্মদপুর, পাঁচগাঁওএবং রামনারায়ণপুর।১৯৯৫ সালের ১ জানুয়ারী চাটখিল পৌরসভার কার্যক্রম শুরু হয়।
ইতিহাস/নামকরণঃজনশ্রতি আছে যে, অতীতে এ এলাকায় একটি বিল ছিল। এ বিলে চাটপোকার অবস্থানের জন্য স্থানীয় অধিবাসীরা হুমকির সম্মুখীন হয়েছিলেন। কালক্রমে এ বিল এলাকায় জনবসতি স্থাপন হয় এবং এলাকার নাম হয় চাটখিল।এই উপজেলায় রাম নারায়নপুর ইউনিয়নে একটি জরাজীর্ন জমিদার বাড়ী আছে এবং বদলকোর্ট ইউনিয়নে মেগা দীঘি নামে একটি দীঘি রয়েছে। এছাড়া দিগন্ত বিস্তিত সবুজ মাঠ সবার মন জুড়ায়।
ভৌগলিক অবস্থানঃ চাটখিল উপজেলার অবস্থান উত্তর অক্ষাংশের ২৩°২৯’ এবং ২৩°৪২’ এর মধ্যে ৯০°৫৯’ এবং ৯১°০৫’ দ্রাঘিমাংশের মধ্যে।উত্তরে চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি উপজেলা, দক্ষিণে লক্ষ্মীপুর জেলার সদর উপজেলা, পূর্বে নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ী উপজেলা, পশ্চিমে লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলা।
প্রাচীনকাল থেকেই চাটখিল উপজেলার জনেগাষ্ঠী ক্রীড়ামোদী। এখানে প্রতিবছরই বিভিন্ন টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। এখানকার জনপ্রিয় খেলার মধ্যে বর্তমানে ক্রিকেট ও ফুটবলের আধিপত্য দেখা গেলেও অন্যান্য খেলাও পিছিয়ে নেই। চাটখিল বেশ কয়েকটি খেলার মাঠ রয়েছে। শীতকালীন খেলাধুলার মধ্যে ব্যাডমিন্টনের যথেষ্ট প্রভাব রয়েছে। এছাড়া গ্রামীন খেলাধুলাও বিভিন্ন স্থানে দেখা যায়।যেমনঃবউ চি,গোল্লাচুট,কাবাডি,কানামাছি ইত্যাদি।

সম্পর্কে Abu Bakar

আমি মানুষ,আমি মুসলমান,আমি বাঙ্গালি,আমি নোয়াখাইল্লা।

Check Also

নোয়াখালী জেলার ক্ষুদ্রতম উপজেলা

চাটখিল বাংলাদেশের নোয়াখালী জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা। আয়তনের দিক থেকে নোয়াখালী জেলার ক্ষুদ্রতম উপজেলা/থানা হিসেবে …

Leave a Reply