হোম পৃষ্ঠা / সংবাদ / নোয়াখালীর নোয়াখালী পেইজ : সাজ্জাদ যোবায়ের

নোয়াখালীর নোয়াখালী পেইজ : সাজ্জাদ যোবায়ের

নোয়াখালী পেইজ♥♥
বৃহত্তর নোয়াখালীর জনমানুষের মৌলিক দাবীগুলো নিয়ে এবং সাম্প্রতিক বিভাগ আন্দোলনের সকল কর্মসূচি প্রত্যক্ষভাবে পালন করার মাধ্যমে লক্ষ কোটি মানুষের কাছে তাদের আস্থার প্রতীকরুপে ফুটে উঠেছে নোয়াখালী পেইজ।
বিভাগ নিয়ে আন্দোলনের সূতিকাগার এই নোয়াখালী পেইজের মহতী উদ্বেগে উত্তরবঙ্গের বণ্যাকবলিত মানুষের দ্বারে খাবার পৌছে দেয়া, গরীব-মেধাবী শিক্ষার্থীদের সার্বিকভাবে সহযোগিতা অব্যাহত ছিল,থাকবে।
নতুন প্রকল্পে ইভটেজিং দমনে জনপ্রচারণা এবং মাদক নির্মূলে প্রশাসনের সাথে একাত্মতা পোষণ করে কাজ করা।
রক্তের অপ্রুলতায় কোন মানুষ যেন শেষ সময়ে এসে কষ্ট করতে না হয়, দুনিয়া ছেড়ে যেতে না হয়, সে লক্ষ্যে ডোনার কালেক্ট করে বিনামূল্যে রক্ত সরবরাহ করবে নোয়াখালী পেইজ।
নোয়াখালী বাংলাদেশের অন্যতম বৃক্ষশশোভিত জেলা। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় গাছের বিকল্প নেই।
এই স্বপ্নিল সোনালি পেইজের উদ্বেগে বৃহত্তর নোয়াখালীতে ( নোয়াখালী, লক্ষীপুর,ফেনী) লক্ষাধিক গাছের চারা রোপনের প্রকল্প বাস্তবায়ন করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে নোয়াখালী পেইজ। নোয়াখালী ফিরে পাবে তার বৃক্ষশোভ ঐতিয্য।

পেইজ সম্পর্কিত আমার ব্যক্তিগত কিছু অভিমত:-
তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ( নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়) মাত্র ১ম বর্ষের ছাত্র। হুট করে বা অন্ধবিশ্বাস অথবা কারো প্রত্যক্ষ প্ররোচনায় নোয়াখালী পেইজে আমার সদস্যপদ হয়নি। যখন দেখি নোয়াখালী শহরে বিভাগ চাই নিয়ে আন্দোলন হচ্ছে, আন্দোলনের নেতৃত্বে কে? নোয়াখালী পেইজ। গণস্বাক্ষর অভিযান( বৃহত্তর নোয়াখালীর প্রতিটা জেলার বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়ের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে, ব্যবসায়িক সংগঠনে, ইউনিয়ন, গ্রাম, মহল্লায়) পরিচালনায় কে? নোয়াখালী পেইজ।
নোয়াখালীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রশস্তকরন,সড়ক সংষ্কার , খাল খনন,নদী-ভাঙ্গনে সৃষ্ট সমস্যা ইত্যাদি যৌক্তিক দাবী উত্থাপনকারী কে? নোয়াখালী পেইজ।
এতগুলো জটিল প্রশ্নের উত্তর শুধু নোয়াখালী পেইজে খুজে পাওয়ায় সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকেই আমার নোয়াখালী পেইজে আসা। এই পেইজ পরিবারের অসাধারণ সদস্যদের সাথে কাজ করার অগ্রীম আগ্রহ থেকেই এই পেইজে আগমন।
যখন দেখি আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি স্যার ( ড. এম অহিদুজ্জাম, মাননীয় উপাচার্য ; নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়) বিভাগ আন্দোলনে আয়োজিত মানব-বন্ধনে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে একাত্মতা পোষণ করে প্রত্যক্ষ উপস্থিত হয়ে আন্দোলন মুখরিত করেছিলেন। নোয়াখালী পেইজের এই বিপ্লবী উদ্বেগ আত্মউপলব্ধি করে পেইজের সদস্য হয়েছি।
প্রথমদিকের অনুমিত শপথ ছিল, ৬৪ জেলার স্বপ্নচারী শিক্ষার্থীদের পদচারণঘটা এই বিশ্ববিদ্যালয় কে বিভাগীয় বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে দেখতে পারা। এই জন্য দরকার নোয়াখালী বিভাগ ( তখন আমার একটা তথ্যবহুল লেখা বেশ কয়েকটা পোর্টালে পাবলিশ হয়েছিল “নোবিপ্রবিকে বিভাগীয় শহরের বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে দেখতে চাই” শিরোনামে)।
পেইজের পক্ষে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিনিধিত্ব করায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্নস্তরের শিক্ষার্থীদের বিভাগ আন্দোলনের প্রতি মৌন সম্মতি, পরোক্ষ, প্রত্যক্ষ অংশগ্রহন ছিল, আছে, ভবিষ্যতেও থাকবে ইনশা আল্লাহ্।
বুকে হাত রেখে বলতে পারি, নোয়াখালী পেইজের এক একজন সদস্য একেকজন তরুণ সমাজসেবক, জনমানুষের মৌলিক অধিকার আদায়ে সতীর্থ্য সারথী, নোয়াখালীর ভাগ্য উন্নয়নে সবসময়ের দাবী আদায়ের সময়ের সাহসী মুক্তিকামী সৈনিক।
জয় হোক মানবতার, এগিয়ে যাক শতাব্দী থেকে সহস্র বছর।
নোয়াখালী পেইজ।
শুভকামনা চিরন্তন ♥

সাজ্জাদ যোবায়ের
নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

সম্পর্কে Mizan Rahman

নোয়াখালী আমাকে কি দিয়েছে সেটা চিন্তা করি না, নোয়াখালীকে আমি কি দিতে পারবো তাই চিন্তা করি।

Check Also

নোয়াখালীর মাঠে নেমেছে বিডি ক্লিন

এইবার মাঠে নেমেছে বিডি ক্লিন নোয়াখালীর কিছু তরুন তরুনি। পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য অন্যান্য …

Leave a Reply